পিএসসির জুয়া খেলার শিকার হতে যাচ্ছে আবারও মেধাবীরা

জাতির মেধাবীদের জন্য দুঃসময়। কোটার অপশাসনের পর এবার আসতে যাচ্ছে প্রথম শ্রেণি/ ২য় শ্রেণির জব ধারীদের হাত পা বেঁধে ফেলার কার্যক্রম।

দেশে অনেক মূল্যহীন, সামাজিক মর্যাদাহীন ১ম শ্রেণি পোস্ট আছে। আবার আছে অতি মর্যাদাশীল ও ক্ষমতাশীল ১ম শ্রেণির পোস্ট। বৈষ্যমমূলক সমস্যা তো এখানেই।

বিসিএস এর মর্যাদাশীল পোস্টগুলোর আকর্ষণেই মেধাবীরা এদিকে ছুটছে। কেউ একবারেই আবার কেউ অনেকবার চেষ্টায় সফল হচ্ছে। আর মেধাবীদের বয়স লিমিট হচ্ছে মাত্র ৩০। গ্রামের অনেক স্কুলের টিচারদের স্বভাব আছে বয়স বাড়িয়ে দেবার অথবা ছাত্রদের অসচেতনতায় তার বয়স চুরির খেলা খেলতে পারে না। আবার সেশন জটেও বয়স খেয়ে যায়। ফলে তাদের জব এপ্লাইয়ের সময় থাকে ৩-৪ বছর মাত্র। এই সময়েই তারা স্বপ্ন দেখে সারাজীবনের দুঃখ কষ্ট ঘুচানোর। মর্যাদাশীল প্রথম শ্রেণির জবের।

কিন্তু পিএসসি এসব বন্ধ করতে যাচ্ছে। সরকারি প্রতিষ্ঠান এর যে কোন প্রথম শ্রেণি পোস্ট, নন- ক্যাডার বা শিক্ষা ক্যাডার টাইপ পোস্ট একবার পেয়ে গেলে আপনার স্বপ্ন দেখা একেবারে মানা। যতই আপনার মেধা থাকুক। দুর্ভাগ্যের শিকার একবার হয়ে গেলেই শেষ। এই ক্যাডারগুলো আপনার অনেক সময় নিজের যোগ্যতা অনুসারে পাওয়া সম্ভব হয়ে উঠে না। হতে পারে খাতা যে কাটে তার ব্যার্থতা, ভাইভা বোর্ডের সদস্যদের ব্যার্থতা, হয়ত আপনি অসুস্থ ছিলেন, হয়ত কোটার মারপ্যাচে আপনার এই অবস্থা হলো অথবা অন্যান্য অনুঘটকের কারনে আপনি ব্যার্থ হলেন। তাহলে আপনার স্বপ্ন দেখায় অন্যায় ফতোয়া জারি হলো।
আপনি হয়ত ক্রমান্বয়ে উন্নতি করে মর্যাদাশীল পদে যাবার চেষ্টা করছেন। কয়েকবার বিসিএস দিয়ে নন- ক্যাডার থেকে বা শিক্ষা ক্যাডার টাইপ পোস্ট থেকে ভালো পোস্টে যেতে চাচ্ছেন। কিন্তু আপনাকে যেতে দেয়া আর হবে না। এমনিতেই আপনাকে বয়সের মারপ্যাঁচে আটকানো হয়েছে, কোটার প্যাঁচে আটকানো হয়েছে। প্রথম শ্রেণি নামক লৌহ পিঞ্জরে আটকানো হবে এবার।

Leave a Comment: